বিভিন্ন ধরনের সবজির উপকারিতা

বিভিন্ন ধরনের সবজির উপকারিতা

তথ্য বাংলা

মিষ্টি কুমড়ার স্বাস্থ্য উপকারিতাঃ

👉 চোখের ছানি পড়া রােধ সহ চোখের রেটিনা কোষ রক্ষা করে

👉 কম ক্যালােরি এবং উচ্চ ফাইবারযুক্ত হওয়ায় খাদ্য হজমে ও ওজন কমাতে কাজ করে।

👉 বাতের ব্যথাসহ দীর্ঘস্থায়ী ব্যথার প্রশমন ঘটায়

👉 এতে থাকা পটাসিয়াম ও উচ্চ ভিটামিন-সি উপাদান উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনে।

👉 রক্তস্বল্পতা দূর করে রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলে সর্দি-কাশি, ঠাণ্ডা লাগা প্রতিরােধ করতে সাহায্য করে।

👉 এতে বিদ্যমান জিংক ও আলফা হাইড্রোক্সাইড ইমিউনিটি সিস্টেম ভালাে রাখে ও অস্টিওপােরােসিস প্রতিরােধে কাজ করে

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

মাশরুমের ১০টি উপকারিতাঃ

👉 মাশরুম উচ্চমাত্রার আঁশ থাকে, সােডিয়ামের পরিমাণ। কম থাকে এবং প্রচুর পরিমাণে পটাসিয়াম থাকে যা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে এবং হৃদপিণ্ডের কাজে সহায়তা করে

👉 মাশরুমের ফাইবার বা আঁশ পাকস্থলি দীর্ঘক্ষণ ভরা। রাখতে সাহায্য করে। মাশরুম রক্তে চিনির পরিমাণ। নিয়ন্ত্রণ করে এবং ওজন কমাতে সহায়তা করে

👉 ত্বকের সুরক্ষায় অনেক কার্যকরী,

👉 মাশরুমে পলিফেনল ও সেলেনিয়াম নামের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট v থাকে যা মারাত্মক কিছু রােগ যেমনঃ স্ট্রোক, স্নায়ুতন্ত্রের | রােগ এবং ক্যান্সার থেকে শরীরকে রক্ষা করে,

👉 মাশরুম মানবদেহের রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে,

👉 সূর্যের আলাের সংস্পর্শে যে মাশরুম উৎপন্ন হয় তাতে প্রচুর ভিটামিন ডি থাকে যা ক্যালসিয়াম ও ফসফরাসের। শােষণ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে,

👉 ব্রেস্ট ক্যান্সার ও প্রােস্টেট ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়, মাশরুমের ফাইটোকেমিক্যাল টিউমারের বৃদ্ধিতে বাঁধার সৃষ্টি করে,

👉 মাশরুমের ভিটামিন বি, সায়ুর জন্য উপকারি এবং বয়সজনিত রােগ যেমন- আলঝেইমার্স রােগ থেকেরক্ষা করে,

👉 মাশরুম গ্রহণ করলে রক্তে চিনির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে, ডায়াবেটিক রােগীদের জন্য উপকারী,

👉 মাশরুমের ফাইবার ও এনজাইম হজমে সহায়তা করে। এটি অন্ত্রে উপকারি ব্যাকটেরিয়ার কাজ বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

শশার উপকারিতাঃ

👉 দেহের পানিশূন্যতা দূর করে।

👉 দেহের ভেতর-বাইরের তাপ নিয়ন্ত্রণ করে।

👉 দেহে জমে থাকা বিষাক্ত পদার্থ দূর করে।

👉 প্রাত্যহিক ভিটামিনের শূন্যতা পূরণ করে

👉 ত্বকবান্ধব খনিজের ভালাে উৎস

👉 খাবার হজমে ও ওজন কমাতে কাজ করে।

👉 চোখের জ্যোতি বাড়ায়।

👉 ক্যানসার প্রতিরােধে কাজ করে।

👉 ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে।

👉 মুখের অভ্যন্তরের জীবাণু ধ্বংস করে

👉 চুল ও নখ সতেজ রাখে

👉 মাথা ধরা থেকে নিষ্কৃতি দেয়।

👉 গেঁটেবাত থেকে মুক্তি দেয়

👉 কিডনি সুস্থ রাখে

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

পালং শাকের ১০টি স্বাস্থ্য উপকারিতাঃ

👉 বাতের ব্যথা, অস্টিওপােরােসিস, মাইগ্রেশন, মাথাব্যথা দূর করতে প্রদাহনাশক হিসেবে পালং শাক কাজ করে,

👉 স্মৃতিশক্তি এবং মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধিতে খুবই কার্যকর,

👉 প্রচুর আয়রন ও ভিটামিন-সি থাকায় রক্তস্বল্পতা দূর করতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে,

👉 পেট পরিষ্কার রাখতে, রক্ত তৈরিতে ও দৃষ্টিশক্তিও বাড়াতে কাজ করে,

👉 কিডনিতে পাথর হওয়া থেকে বিরত রাখতে ভূমিকা পালন করে,

👉 কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে,

👉 ক্যান্সার প্রতিরােধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে,

👉 দাঁত ও হাড়ের ক্ষয়রােধে কার্যকর ভূমিকা পালন করে,

👉 ডায়াবেটিক রােগীদের জন্য পালং শাক খুব উপকারী,

👉 রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

বরবটির ১০টি উপকারিতাঃ

👉 ফ্ল্যাভােনয়েড নামে এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা ক্যান্সার প্রতিরােধে কাজ করে,

👉 এতে থাকা ভিটামিন-কে অস্থিসন্ধির ব্যথা কমায়,

👉 দেহের ক্ষতিকর কলেস্টেরলের পরিমান কমিয়ে হার্টের সুরক্ষা দেয়,

👉 বরবটিতে রয়েছে সিলিকন যা হাড়ের ঘনত্ব বৃদ্ধি করে,

👉 এর ভিটামিন-সি রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা বাড়ায়,

👉 শরীরের আয়রনের ঘাটতি পূরণ করে,

👉 শরীর থেকে দূষিত যৌগগুলােকে বের করে দিয়ে শরীরে চর্বি জমতে দেয় না,

👉 ডায়াবেটিসের হাত থেকে রক্ষা করতেও বরবটির ভূমিকা অনেক,

👉 ত্বকের সুরক্ষায় ও চুল পড়া রােধে কাজ করে,

👉 দেহে রক্ত জমাট বাঁধতে দেয় না।

কচুর লতির ১০ উপকারিতাঃ

👉 রক্তস্বল্পতা দূর করে

👉 হাড় শক্ত করে ও চুলের ভঙ্গুরতা রােধ করে

👉 দীর্ঘ সময় ধরে চলা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে

👉 শরীরের রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতাকে করে দ্বিগুণ শক্তিশালী

👉 অ্যাসিডিটি ও গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমায়

👉 রক্তের কোলেস্টরলের মাত্রা কমায়

👉 কোলন ও ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রতিরােধে কাজ করে

👉 এর আয়ােডিন ও ভিটামিন বি মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য ভালাে রাখে

👉 এতে শর্করা কম থাকায় ওজন কমাতে কাজ করে

👉 গর্ভাবস্থায় হবু মা’য়ের জন্য অনেক উপকারী

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

পাট শাকের উপকারিতাঃ

👉 খাওয়ার রুচি বাড়ায়, মুখের স্বাদ ফিরিয়ে আনে

👉 এতে থাকা ম্যাগনেশিয়াম শরীরে প্রয়ােজনীয় হরমােন উৎপাদন করে স্নায়ুতন্ত্র শান্ত রাখে এবং নিরবচ্ছিন্ন ড্রিা নিশ্চিত করে,

👉 এর ভিটামিন এ, ই এবং সি শরীরের রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা বাড়ায়,

👉 এতে থাকা ভিটামিন সি ও ক্যারােটিন মুখের ঘা দূর করতে সাহায্য করে,

👉 রক্তের শ্বেত কনিকা বৃদ্ধি করে এবং ভিটামিন-এ, ভিটামিন-ই চোখ, হৃদপিণ্ডসহ অন্যান্য অঙ্গের রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা বাড়ায়,

👉 পাটশাকে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম আছে যা। হাড় ভালাে রাখতে সাহায্য করে এবং হাড়ের ক্ষয় রােধ করে,

👉 উচ্চ রক্তচাপ জনিত সমস্যা দূর করে,

👉 পাটশাক রক্তের খারাপ কোলেস্টেরল কমাতে সহায়তা করে,

👉 পাটশাকে প্রচুর পরিমান আয়রন থাকে যা রক্তস্বল্পতা দূর করে,

👉 কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে,

👉 গেঁটেবাত, আথ্রাইটিস এবং প্রদাহ জনিত অন্যান্য রােগ প্রতিরােধে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

পটলের স্বাস্থ্য উপকারিতাঃ

👉 হজমে সাহায্য করে

👉 কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করে

👉 ওজন কমাতে সাহায্য করে

👉 রক্ত পরিষ্কার করে

👉 কোলেস্টেরল ও ব্লাড সুগার কমায়

👉 ঠাণ্ডা, জ্বর ও গলা ব্যথা নিরাময়ে সাহায্য করে

👉 বয়সের ছাপ দূর করে

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

ধনে পাতার উপরারিতাঃ

👉 উপকারিতা শরীরে খারাপ কোলেস্টরলের মাত্রা কমায়, ভাল কোলেস্টরলের মাত্রা বৃদ্ধি করতে কাজ করে

👉 হজমে উপকারী, যকৃতকে সঠিকভাবে কাজ করতে সাহায্য করে

👉 ইনসুলিনের ভারসাম্য বজায় রাখে এবং রক্তের সুগারের মাত্রা কমায়

👉 মুখে আলসার নিরাময়েও উপকারী, চোখের জন্যেও ভাল

👉 এতে থাকা আয়রন রক্তশূন্যতা সারাতেও বেশ উপকারী

  👉 ফুসফুস এবং পাকস্থলীর ক্যান্সার প্রতিরােধে কাজ করে

👉 বাতের ব্যথাসহ হাড় এবং জয়েন্টের ব্যথা উপশমে কাজ করে

👉 স্মৃতিশক্তি প্রখর এবং মস্তিষ্কের নাভ সচল রাখতে সাহায্য করে

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

ঢেড়সের ১০ উপকারিতাঃ

👉 রক্তের বাজে কোলেস্টেরল কমায়

👉 গর্ভাবস্থায় মিসক্যারেজ হওয়া প্রতিরােধ করে

👉 ত্বকের বিষাক্ত পদার্থ দূর করে / শরীরের টিস্যু পুনর্গঠনে ও ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে

👉 শ্বাসকষ্ট প্রতিরােধে উপকারি

👉 কোলন ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়

👉 এর ভিটামিন সি এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা বাড়ায়

👉 হজমে সাহায্য করে

👉 খুশকি দূর করে এবং শুষ্ক মাথার ত্বকের জন্য উপকারী

👉 বিষন্নতা, দুর্বলতা এবং অবসাদ দূর করতে কাজ করে

👉 চোখের ছানি প্রতিরােধে সাহায্য করে

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

চিচিংগা’র ১০ টি উপকারিতাঃ

👉 ত্বকের স্বাস্থ্য ধরে রাখতে অনেক উপকারী

👉 এতে থাকা ক্যালসিয়াম হাড় ও দাঁতের গঠন মজবুত করে

👉 এটি একটি প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়ােটিক, শরীরের রােগ প্রতিরােধে অনন্য ভূমিকা পালন করে

👉 শরীরের যেকোনাে ধরনের ক্ষত দ্রুত শুকাতে ভূমিকা রাখে

👉 এতে প্রচুর আঁশ থাকায় কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়

👉 জ্বরের সময় চিচিঙ্গা খেলে শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিক হয়

👉 অ্যাসিডিটি প্রতিরােধে কাজ করে, গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা, পেপটিক আলসার সারাতেও সাহায্য করে

👉 এতে প্রচুর হেপাটা প্রােটেকটিভ উপাদান আছে যা লিভারের অনেক সমস্যা দূর করে

👉 ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে খুব ভালাে এক সবজি

👉 কফ-কাশি দূর করে শ্বাস-প্রশ্বাসের জটিলতা কমায়

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)

কাঁচা মরিচ খেলে কী হয়ঃ

👉 হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটে

👉 এতে বিদ্যমান একটি হরমােনের জন্য মন-মেজাজ চাঙ্গা থাকে

👉 রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটে

👉 সাইনাসের মতাে রােগ দূরে থাকে

👉 রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে

👉 শরীরের স্বাভাবিক তাপমাত্রা বজায় থাকে

👉 হার্টর কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়

👉 ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়

সতর্কতাঃ অতিরিক্ত পরিমাণে কোন খাদ্য গ্রহন উচিৎ নয়, (প্রয়ােজনে পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিন)